২০২৪-এর লোকসভা ভোটের আগে বিরোধী জোটের সলতে পাকানোর চেষ্টা

India

সৌম্য দাস , নয়া দিল্লি :  কংগ্রেসের চার জন মুখ্যমন্ত্রী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ অন্যান্য বিরোধী দলের তিন জন মুখ্যমন্ত্রী। সনিয়া গাঁধী ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহ্বানে সাত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠক থেকে আজ ২০২৪-এর লোকসভা ভোটের আগে বিরোধী জোটের সলতে পাকানোর চেষ্টা শুরু হল। শুরুর দিনেই মোদী সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণের মুখ হয়ে ওঠার চেষ্টা করলেন মমতা। উদ্ধব ঠাকরে-সহ বাকি মুখ্যমন্ত্রীরাও মোদী সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়ে বিরোধী ঐক্যের উপরে জোর দেন বৈঠকে। বৈঠকের পরে মমতা বলেন, “মুখ্যমন্ত্রীরা সবাই বলছেন, মানুষের কোনও বিষয় তুলে ধরলেই বিভাজন তৈরির চেষ্টা হচ্ছে। আবার এজেন্সিকে দিয়ে ভয় দেখানো হচ্ছে। ভয় পেলে তো দেশে একটাই রাজনৈতিক দল পড়ে থাকবে। আমাদের বাগে আনতে কখনও কোনও অফিসারের বিরুদ্ধে ইচ্ছামতো ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। কখনও রাজনৈতিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে এটা হচ্ছে। এই যে পদ্ধতিতে দেশ চলছে, তার বিরোধিতা করছি।” মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের বক্তব্য, “আমাদের ঠিক করতে হবে, আমরা লড়াই করব, না ভয় পাব?” প্রত্যাশা মতোই তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপির শরিক এডিএমকে নেতা ই কে পলানিস্বামী হাজির হননি। বৈঠক এড়িয়ে গিয়েছেন তেলঙ্গানার কে সি রাও, অন্ধ্রপ্রদেশের জগন্মোহন রেড্ডি, ওড়িশার নবীন পট্টনায়কেরা। কেরলে কংগ্রেসের নিশানায় থাকা বাম মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নও ছিলেন না। তবে বিরোধী ঐক্যের জন্য বারবার এই ধরনের বৈঠকের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন উদ্ধব। তাঁর মতে, “কোনও সমস্যা এলে তবে আমরা একে অন্যের কাছে ছুটছি। আমাদের একসঙ্গে হওয়ার জন্য সমস্যার কেন দরকার! আমরা এককাট্টা থাকলেই বরং সমস্যা আসবে না।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *